নতুন প্রস্তাব পেলেন মেসি

অনেকদিন ধরেই লিওনেল মেসির পিএসজি ছাড়া ও দলবদল নিয়ে নানামুখী আলোচনা চলে আসছে। ইতোমধ্যে শনিবার (৩ জুন) রাতে ফরাসিদের হয়ে শেষ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন বিশ্বজয়ী আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। যদিও শেষটা হয়েছে বিষাদে ভরা। ফ্রেঞ্চ লিগ আঁ-তে ক্লেরমেঁর কাছে পিএসজি ২-৩ গোলে হেরে গেছে। যাইহোক এখন মেসির সম্পূর্ণ মনোযোগ তার পরবর্তী গন্তব্যের দিকেই হওয়ার কথা। বার্সেলোনা ও সৌদি আরবের ক্লাব আল-হিলাল সেই তালিকায় থাকলেও, এতদিন আড়ালে ছিল ইন্টার মিয়ামি। নতুন করে তারা আর্জেন্টাইন আনুষ্ঠানিক চুক্তির প্রস্তাব দিয়েছে।

স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কা এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে। আমেরিকান মেজর সকার ক্লাব ইন্টার মিয়ামির পক্ষ থেকে দীর্ঘমেয়াদী একটি চুক্তির প্রস্তাব দেওয়ার দাবি করছে মার্কা। প্রতিবেদনে ‌‘যুক্তিসঙ্গত’ (রিজনেবল) আর্থিক একটা অঙ্কের কথা বলা হলেও, তারা সঠিক পরিমাণ উল্লেখ করেনি। তবে সেটি যে মেসিকে আল-হিলালের দেওয়া বছরপ্রতি ৪০০ মিলিয়ন ডলারের প্রস্তাবের ধারেকাছেও নেই, তা স্মরণ করিয়ে দিয়েছে তারা।

তবে মেসি মিয়ামির ক্লাবটিতে গেলে, তিনিই হবেন আমেরিকান লিগের সবচেয়ে দামি খেলোয়াড়। যেখানে মাত্র তিনজন ফুটবলারকে মিলিয়ন ডলার বার্ষিক বেতন দেওয়ার অনুমতি রয়েছে। মেসি সেই নীতিকেও ছাড়িয়ে যাবেন বলে সংবাদমাধ্যমগুলোর দাবি। ফলে আগে থেকেই নানারকম প্রস্তাব নিয়ে হাজির হওয়া ক্লাবটি নতুন করে মেসিকে পেতে আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শুরু করেছে।

মেসির দলবদলের টেবিলে সাম্প্রতিক সময়ে কেবল ‍দুটি ক্লাবের আলোচনা চলে আসছিল। বার্সেলোনা আর্থিক সঙ্কটের মধ্যেও এতদিন ধরে আর্জেন্টাইন অধিনায়ককে পেতে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে আসছে। যদিও তারা শেষ পর্যন্ত তাতে সক্ষম হবে কিনা, তা নিয়ে আগেই শঙ্কার কথা জানিয়েছিলেন লা লিগা সভাপতি হাভিয়ের তেবাস। সেই বাস্তবতা নতুন করে দেখিয়েছে কাতালান ক্লাবটি। মেসিকে পুনরায় সাবেক ক্লাবটিতে আনতে বার্সার সামনে শর্ত ছিল বর্তমান দামের চেয়ে অনেক কমে তাকে রাজি করানো এবং দলের বেশ কয়েকজন ফুটবলারকে ছেড়ে দেওয়া। দ্বিতীয় শর্ত পূরণ করলেও, তারা প্রথম শর্তের দায়ভার যেন মেসির হাতেই ছেড়ে দিয়েছে।

সম্প্রতি বার্সা কোচ জাভি হার্নান্দেজ বলছিলেন, ‘আমার দিক থেকে আমি শতভাগ নিশ্চিত যে সে (মেসি) আমাদের সঙ্গে যোগ দিচ্ছে। সে অবগত আছে যে আমরা তাকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত আছি। এ ব্যাপারে কোনো কিছুই পরিবর্তন হয়নি। আমাদের এখনো সুযোগ আছে, আমরা তাকে চাই। এবার তার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পালা। আমাদের এখানে তাকে যুক্ত করতে প্রস্তুত আছি।’

এদিকে, আল-হিলালের দেওয়া প্রস্তাবের দিকে তাকালে ফরাসি সংবাদমাধ্যম ফুট মারকাতোর প্রতিবেদনটি নজরে আসে। যেখানে বলা হয়েছে, মেসিকে দুই বছরের জন্য ১২০ কোটি ইউরোর প্রস্তাব দিয়েছে সৌদির ক্লাব। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ১৩৭৮০ কোটি টাকা। সৌদি আরবের ক্লাব আল নাসরে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো যত বেতন পান, মেসিকে দেওয়া প্রস্তাবটা তার প্রায় দ্বিগুণ।

তাই মেসি বড় অঙ্কের প্রস্তাব ঠেলে সাবেক ন্যু ক্যাম্পে ফিরবেন কিনা সেটা আগামী কয়েকদিনের ভেতরেই জানা যাবে। তবে লক্ষ্যণীয় বিষয়, সৌদিতে পর্যটন দূতের ভূমিকায় আগেও বেশ কয়েকবার গেলেও, এখনও ব্যক্তিগত কোনো কাজে যাননি মিয়ামিতে। তবে শহরটিতে সেখানে তার কোম্পানির বিলাসবহুল বাড়ি রয়েছে, বাণিজ্যিক কাজেই সেটি ব্যবহার করা হয়। তবে মিয়ামির নতুন এই অফার আতঙ্কিত করতে পারে আল-হিলালকে। শেষ সময়ে এসে তারা বড় প্রতিদ্বন্দ্বী পাবে, নিশ্চয়ই তারা সেটা ভাবেনি। ফলে মেসির ভবিষ্যৎ নিয়ে এখন আরও কিছুটা দোলাচল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.