জেলা যুবলীগের নতুন কমিটিতে আলোচনায় যাদের নাম

ভেঙ্গে দেয়ার পর কক্সবাজার জেলা যুবলীগের কমিটি ঢেলে সাজানোর কাজ চলছে। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, পূনার্ঙ্গ কমিটি হওয়ার সম্ভাবনা নেই। আহবায়ক কমিটি দেয়া হবে বলে সূত্রটি বলছে। আগ্রহীদের জিবন বৃতান্ত জমা নেয়া হবে শীঘ্রই। নিশ্চিত হওয়া না গেলেও সূত্রটি বলছে ২০ ও ২১ জুন জমা নেয়া হতে পারে আহবায়ক কমিটির জন্যে আগ্রহীদের জিবন বৃতান্ত। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আহবায়ক কমিটি হলে আহবায়ক হিসেবে লোকমুখে শোনা যাচ্ছে ৪ টি নাম,তাদের মধ্যে রয়েছে ৩ ইফতেখার,তারা হলেন, সোয়েব ইফতেখার, ইফতেখার উদ্দিন পুতু, জাহিদ ইফতেখার এবং কেন্দ্রীয় যুবলীগের নেতা ইশতিয়াক আহমেদ জয়। এছাড়াও মাশেকুর রহমান বাবুসহ আরো বেশ কয়েকজনের নামও শোনা যাচ্ছে লোকমুখে। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত পৌরসভা নির্বাচনে নৌকার পক্ষে ভূমিকা রাখা নেতাদেরই মুল্যায়ন করা হবে সাথে নেতৃত্ব দেয়ার সাংগঠনিক ও শিক্ষাগত যোগ্যতাকেও বিবেচনায় রাখা হবে বলে সূত্রটি বলছে। তবে পরিচ্ছন্ন রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে পরিচিত সদ্য সাবেক জেলা যুবলীগ সভাপতি সোহেল আহমেদ বাহাদুর কেও মুল্যায়ন তালিকায় রাখা হতে পারে। এ ক্ষেত্রে সোহেল আহমেদ বাহাদুর কে কেন্দ্রীয় যুবলীগে কো-অপ্ট করা হতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। অন্যদিকে ইশতিয়াক আহমেদ জয় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি থাকাকালে সৃষ্টিশীল নানান কর্মপ্রয়াস করে সাংগঠনিক দক্ষতার প্রমান রেখেছেন। শোয়েব ইফতেখার দীর্ঘদিন যুবলীগের রাজনীতির সাথে একনিষ্ঠ হয়ে কাজ করেছেন। ইফতেখার উদ্দিন পুতু বর্তমানে সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এবং জাহিদ ইফতেখার দুই দফায় জেলা যুবলীগের গুরুত্বপূর্ণ পদে ছিলেন। অন্যদিকে মাশেকুর রহমান বাবু নব নির্বাচিত পৌর মেয়র মাহাবুবুর রহমান চৌধুরীর ছোট ভাই ও কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃপক্ষের সদস্য।তারও কেন্দ্রে ভালো যোগাযোগ আছে এমনটাই বলছে তার অনুসারীরা। কথা বলে জেলা যুবলীগের বেশীর ভাগ নেতাদের কাছ থেকে জানা গেছে, একজন কর্মঠ, দক্ষ সংগঠক কে আহবায়ক করে বাকী সবাইকে যুগ্ম- আহবায়ক করে জেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটি করা হলেই সবচাইতে উত্তম কাজ হবে। গেলো ৮ জুন জেলা যুবলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা করে কেন্দ্রীয় যুবলীগ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.