ফের হজ্বের খুতবার বাংলা অনুবাদক ও ভাষ্যকার মনোনীত কক্সবাজারের কৃতী সন্তান আ. ফ. ম. ওয়াহীদুর রহমান

এবারে খুতবাতুল আরাফাহ বা হজ্বের খুতবার বাংলা অনুবাদক ও ভাষ্যকার হিসেবে তৃতীয়বারের মতো দায়িত্ব পালন করবেন কক্সবাজারের কৃতী সন্তান আ.ফ.ম.ওয়াহিদুর রহমান মাক্কী। গতকাল হজ্ব মন্ত্রণালয়ের এই সিদ্ধান্তের কথা জানা গেছে। সৌদি আরব থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আ.ফ.ম.ওয়াহিদুর রহমান মাক্কী নিজেই।

ওয়াহিদুর রহমান মাক্কী কক্সবাজার জেলার রামু উপজেলাধীন গর্জনীয়া পূর্ব বোমাংখিল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম মাওলানা মোহাম্মদ ইসমাইল সাবেক প্রতিষ্ঠাতা হেড মাওলানা গর্জনীয়া ইসলামিয়া সিনিয়র মাদ্রাসা, তার দাদা চট্টগ্রামের বিখ্যাত দারুল উলুম আলিয়া মাদরাসার শিক্ষক ছিলেন।

তিনি বর্তমানে সৌদি আরবে মক্কা উম্মুল কুরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি গবেষণায় রত আছেন। তিনি ১৯৯৮ সালে বাংলাদেশের প্রখ্যাত দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঢাকার তামিরুল মিল্লাত কামিল মাদ্রাসা থেকে হাদিস বিভাগে কামিল ও ঐতিহ্যবাহী মাদ্রাসা-ই- আলিয়া, ঢাকা থেকে কামিল তাফসির বিভাগে কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হন।

তিনি কক্সবাজারের টেকনাফের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ রঙ্গিখালী দারুল উলুম মাদ্রাসা থেকে দাখিল এবং দক্ষিণ চট্টগ্রামের উম্মুল মাদারিস খ্যাত চুনতী হাকিমিয়া আলিয়া মাদ্রাসা থেকে যথাক্রমে আলিম ও ফাজিল পরীক্ষায় সম্মানের সাথে উত্তীর্ণ হন।

তিনি ১৯৯৯–২০০৪ ইংরেজি সাল পর্যন্ত ঢাকা মোহাম্মদপুরে অবস্থিত গাউছিয়া ইসলামীয়া ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার আরবি প্রভাষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। আ.ফ.ম.ওয়াহীদুর রহমান রাজকীয় সৌদি সরকারের যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত ও পদক্ষেপ পৃথিবীর ২০টি ভাষায় খুতবাতুল আরাফার তথা হজের খুতবাহ সম্প্রচার প্রকল্পে বাংলা অনুবাদক ও ভাষ্যকার হিসেবে ২০২০ ,২০২১ সালে নিযুক্ত ছিলেন। ২০২৩ সালের জন্যেও পুনরায় দায়িত্বপ্রাপ্ত হয়েছেন ।
আগামী ৯ জিলহজ ঐতিহাসিক আরাফা ময়দান থেকে রাজকীয় সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে আরবি ভাষায় যে খুতবাহ পাঠ করা হবে, তা বাংলা ভাষা সহ পৃথিবীর বিভিন্ন ভাষায় সম্প্রচার করা হবে।

এছাড়া ও তিনি মক্কায় ইসলামিক সেন্টার এর একজন দায়ী হিসেবে বাংলা ভাষাভাষীদের মাঝে দাওয়াতী কার্যক্রমে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছেন।
উল্লেখ্য যে, বাংলা ভাষায় সম্প্রচারিত খুতবার এই প্রকল্পে আ ফ ম ওয়াহিদুর রহমান সহ মোট ৪ জন দায়িত্ব পালন করবেন, দায়িত্বপ্রাপ্ত আরো যে তিনজন রয়েছেন, তাঁরা হলেন- যথাক্রমে
১-আ.ফ.ম. ওয়াহীদুর রহমান, অনুবাদক ও তত্ত্বাবধায়।
২-ড. খলিলুর রহমান, অনুবাদক।
৩-মুবিনুর রহমান ফারুক. অনুবাদক।
৪-নাজমুস সাকিব, অনুবাদক

ড. খলিলুর রহমান যিনি বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে সম্মিলিত মেধা তালিকায় যথাক্রমে আলিম দ্বিতীয়, ফাজিল প্রথম এবং কামিল প্রথম স্থান অধিকার করে নওগাঁ কামিল মাদ্রাসার প্রধান মুহাদ্দিস ও পরবর্তীতে উম্মুল কুরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স মাস্টার্স পিএইচডি ডিগ্রী কৃতিত্বের সাথে সম্পন্ন করেন।

মুবিনুর রহমান বিন ফারুক আহমদ, বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড থেকে কৃতিত্বের সাথে আলিম পাস করে চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্সে চমৎকার ফলাফল অর্জন পরবর্তী উম্মুল কুরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কৃতিত্বের সাথে অনার্স ডিগ্রী অর্জন করেন। বর্তমানে উক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে এমফিল গবেষক হিসেবে অধ্যয়নরত আছেন।

নাজমুস সাকিব। বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড থেকে কৃতিত্বের সাথে আলিম পাস করে পরবর্তীতে যথাক্রমে জামিয়া শরিয়া মালিবাগ থেকে চমৎকার ফলাফলের মাধ্যমে দাওরায়ে হাদিস পাস করেন এবং উম্মুল ক্বুরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কৃতিত্বের সাথে অনার্স সম্পন্ন করেন, বর্তমানে তিনি মাস্টার্সে অধ্যয়নের জন্য সৌদি আরবের জেদ্দায় অবস্থিত কিং আব্দুল আজিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।।

Leave A Reply

Your email address will not be published.