জালালাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগের কর্মী সমাবেশ ও কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত

কক্সবাজার সদর উপজেলার আওতাধীন ঈঁদগাও এর জালালাবাদ ইউনিয়ন শাখার ৬, ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের কর্মী সমাবেশ ও কাউন্সিল অধিবেশনের আয়োজন করেছেন জালালাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

শুক্রবার (২১ জুলাই) বিকাল ৩.০০ ঘটিকার সময় ঈঁদগাও জালালাবাদ ইউনিয়নের বাহারছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে জালালাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি হাসান তারেকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাহেদ কামালের সঞ্চালনায় উক্ত কর্মী সমাবেশ ও কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানের ১ম অধিবেশনে উদ্ভোধক হিসেবে শুভ উদ্ভোধনী ঘোষনা করেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, কক্সবাজার সদর উপজেলা শাখার সভাপতি, কক্সবাজার জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী ইফতেখার উদ্দিন পুতু। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার সদর—রামু—৩ আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল এম.পি, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন করেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, কক্সবাজার সদর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রাজিবুল হক চৌধুরী রিকো, সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত মহিলা আসন, কক্সবাজার এর সংসদ সদস্য, বীর বাহাদুর মোস্তাক আহমদের সহধর্মিনী কানিজ ফাতেমা মোস্তাক এম.পি, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান লে: কর্ণেল (অব:) ফোরকান আহমেদ, ঈদগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইমরুল হাসান রাশেদ, ঈদগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ন—আহ্বায়ক হুমায়ুন কবির হিমু, জালালাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সেলিম মোর্শেদ ফরাজী ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, জালালাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম. মমতাজুল ইসলাম খান, কক্সবাজার সদর উপজেলা যুবলীগের সহ—সভাপতি মিজানুল হক  ও সাংগঠনিক সম্পাদক  এম. নাছির উদ্দিন জয়, জামিল উদ্দিন শাম, প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক শাহ নেওয়াজ চৌধুরী, উপ—দপ্তর সম্পাদক শাহিদ মোস্তফা, অর্থ সম্পাদক  দিদারুল ইসলাম, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক কামাল উদ্দিন, চৌফলদন্ডী ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা ইয়াছিন আরফাত, পি.এম.খালী ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা তকি উদ্দিন ডোনার, রিয়াজ উদ্দিন, আমিনুল ইসলাম সাদেক, ওসমান সরওয়ার সহ বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত অসংখ্য যুবলীগ নেতা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য জানান, আওয়ামীলীগ সরকার থাকতে কেউ গরিব থাকবে না, না খেয়ে থাকতে হবে না। জননেত্রী শেখ হাসিনা বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, জেলে ভাতা সহ বিভিন্ন ধরনের ভাতা চালু করেছেন যেটি বিএনপি চোখেও দেখেনি। তাদের একটাই উদ্দেশ্য ছিল কিভাবে পাহাড় পরিমাণ সম্পদের মালিক হবে, তার বাস্তব প্রমাণ বিএনপির লুৎফুর রহমান কাজল। বিএনপি ভোট আসলে মানুষের ধারে ধারে যায়, কিন্তু ভোট পাওয়ার পর তাদের চেনেন না। এটাই হল বিএনপির রাজনীতি।

তিনি আরো জানান, খালেদা জিয়া ক্ষমতায় যখন ছিলেন, তখন একটি মোবাইলের দাম ছিল ১,৫০,০০০টাকা। কিন্তু আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর তার পরিমাণ গিয়ে দাড়িয়েছে ৮—১০ হাজার টাকা। এটাই হল খালেদার আমলের পরিস্থিতি। স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে সর্বদা দৃঢ়ভাবে অঙ্গীকারবদ্ধ। যোগ্য পিতার যোগ্য উত্তরসূরি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, গণতন্ত্রের মানস কন্যা মমতাময়ী মা, দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে “রূপকল্প ভিশন—২০৪১” বাস্তবায়নের জন্য সর্বদা বাংলাদেশ মুজিব সৈনিক হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে আমরা সর্বদা কাজ করে শেখ হাসিনার সরকারকে আবার ক্ষমতায় আনব ইনশাআল্লাহ।

সম্মানিত অতিথির বক্তব্যে সংরক্ষিত মহিলা সংসদ কানিজ ফাতেমা মোস্তাক জানান, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সকল সংগঠন ঐক্যবদ্ধ হয়ে নৌকাকে বিজয় করা। নৌকা বাচঁলেই আমরা বাচঁব। তাই সকলের উচিত অঙ্গসংগঠন সকলের ঐক্যের সাথে কাজ করে যাব।

লে: কর্ণেল (অব:) ফোরকান আহমেদ জানান, আমরা কেন নৌকায় ভোট দিব না? এর প্রশ্নের উত্তরে তিনি কক্সবাজারের উন্নয়নের প্রতিচ্ছবি তুলে ধরেন, যেটি অন্য সরকার আগামী ৫০ বছরে ও সম্ভব নয়। বিএনপি যেখানে কক্সবাজারে রেলগাড়ি চলার স্বপ্ন দেখত, সেখানে বর্তমান সরকার তা বাস্তবায়ন করেছে। আওয়ামীলীগ সরকার শুধু স্বপ্ন দেখে না , তা বাস্তবায়নে বিশ্বাসী।

উদ্ভোধক সদর যুবলীগ সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন পুতু জানান, আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কে আবার ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করতে আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের ইস্পাত কঠিন ঐক্য গড়ে তোলে কাজ করতে হবে।  একটি মহল বিদেশী শক্তির সহযোগীতায় অতীতের মতো ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। আওয়ামীলীগ উন্নয়নের মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নিতে চায় আর সেই অপশক্তি তারা দেশকে পিছিয়ে দিতে তৎপর রয়েছে। তিনি আরো জানান, যখনই ক্ষমতায় থাকে দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে। তাই দেশের মানুষের উন্নয়ন সমৃদ্ধির জন্য নানা পদক্ষেপ গ্রহন করেছে।  সরকারের পদক্ষেপ সমূহ সাধারন মানুষের কাছে তুলে ধরা আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের দায়িত্ব।

অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা কক্সবাজার সদর যুবলীগের সম্পাদক রাজিবুল হক চৌধুরী রিকো জানান,  বিএনপি-জামায়াত আবারও তাদের ধ্বংসাত্মক হত্যা-খুনের রাজনীতি শুরু করেছে। এরই অংশ হিসেবে নড়াইলে যুবলীগ নেতাকে হত্যা করা হয়েছে।  আমরা এই অপরাজনীতির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

আরো বক্তব্য রাখেন ঈদগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইমরুল হাসান রাশেদ, ঈদগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ন—আহ্বায়ক হুমায়ুন কবির হিমু, জালালাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সেলিম মোর্শেদ ফরাজী ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, জালালাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম. মমতাজুল ইসলাম খান, কক্সবাজার সদর উপজেলা যুবলীগের সহ—সভাপতি মিজানুল

Leave A Reply

Your email address will not be published.