বঙ্গবন্ধু হত্যার ষড়যন্ত্রে জড়িতদেরও বিচার করতে হবে: ব্যারিস্টার মিজান সাঈদ

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার সাথে দেশি বিদেশি চক্রান্তকারী, সুবিধাভোগী, পৃষ্ঠপোষক, সমর্থক, ও বাস্তবায়নকারীদের স্বরূপ উন্মোচন করার জন্যে স্বতন্ত্র কমিশন গঠন করে তাদের বিচারের আওতায় আনা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন কক্সবাজার -৩ আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী ব্যারিস্টার মিজান সাঈদ ।

শনিবার (২৬ আগস্ট) ঈদগাঁও ইসলামাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আয়োজনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদাত বার্ষিকীর স্মরণ সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যকালে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার সঙ্গে যারা যুক্ত ছিলেন শুধু তাদের বিচারের আওতায় আনলে হবে না, যারা চক্রান্তের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন সেই চক্রান্তকারীদেরও বিচারের আওতায় আনতে হবে। যদি সেটি না করা হয় তাহলে চক্রান্তের রাজনীতি থামানো যাবে না। গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে যে ষড়যন্ত্র, সে ষড়যন্ত্র থামানো যাবে না। একারণে গণতন্ত্রের ভিত মজবুত করতে হলে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পেছনে যে চক্রান্ত হয়েছিল সেই চক্রান্তকারীদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।

ব্যারিস্টার মিজান সাঈদ শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বাংলাদেশের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে উল্লেখ করে বলেন, কক্সবাজার বিমানবন্দর, দোহাজারী-ঘুনদুম- কক্সবাজার রেললাইন, গভীর সমুদ্র বন্দর, মহেশখালীর কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প সহ দেশব্যাপী অসংখ্য মেগা প্রকল্প বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের প্রমানিত হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশ বিস্ময়করভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। তবে কিছু জায়গায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের দলগত বিভেদের কারণে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি সোচ্চার হয়ে ওঠেছে। বিভেদ ভুলে স্বাধীনতা বিরোধীদের ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করতে হবে। সড়ক রেলপথের উন্নয়ন, মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি, গড় আয়ু ও শিক্ষার হার বৃদ্ধি করে বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে বাংলাদেশ। তিনি বলেন, শেখ হাসিনা সরকারের বিশেষ উদ্যোগের ফলে গ্রাম এখন শহরে পরিণত হতে যাচ্ছে। ব্যারিস্টার মিজান আশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশ এবার ‘স্মার্ট বাংলাদেশে’ পরিণত হবে।

এসময় স্মরণ সভায় উপস্থিত ছিলেন , বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কক্সবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান লে.কর্ণেল(অব) ফুরকান আহমেদ, কক্সবাজার পৌর: আওয়ামী লীগের সভাপতি নজিবুল ইসলাম কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল,ঈদগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরুল রাশেদ, জালালাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক আনছারুল করিম,কৃষকলীগ আবছার কামালসহ ওয়ার্ড ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.