রাষ্ট্রীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালা খ্যাত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম

পুলিশ কর্মকর্তা হয়েও ঠিক যেন হ্যামিলিনের বাঁশিওয়ালা। বাঁশির সুরে সবার হৃদয় জুড়িয়ে দেন মো. রফিকুল ইসলাম। কক্সবাজার জেলা পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের দায়িত্ব পালনে সাধারণ মানুষের পাশাপাশি সকল দপ্তরে অর্জন করেছেন সম্মান ও খ্যাতি। সরকারী চাকরীজীবী হলেও বাস্তব জীবনে তিনি মুরালি বাঁশি বাজিয়ে মাতিয়ে রাখেন দর্শক শ্রোতাদের। প্রতিদিন ফোনে ও সরাসরি আইনগত সহায়তা দেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) মো. রফিকুল ইসলাম।
তাঁর এই দক্ষতা ও সততা-নিষ্ঠার সাথে অর্পিত দায়িত্ব পালনে স্বীকৃতি স্বরূপ সম্মানজনক শুদ্ধাচার পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। বুধবার (১৩ সেপ্টেম্বর) পুলিশ সদর দপ্তরে তাঁকে শুদ্ধাচার পুরস্কার (২০২১-২০২২) হিসেবে ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট প্রদান করেন পুলিশের মহা-পরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন, বিপিএম (বার), পিপিএম।

উক্ত অনুষ্ঠানে পুলিশের আইজিপি পেশাদারিত্ব ও শুদ্ধতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের জন্য পুলিশ সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান।
তিনি আরও বলেন, আমরা যারা সরকারি দায়িত্বে নিয়োজিত আছি তাদের নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে হবে। আবার সততাও বজায় রাখতে হবে।

বুধবার রাতে এক প্রতিক্রিয়ায় শুদ্ধাচার পুরস্কারপ্রাপ্ত কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম দেশ ও মানুষের জন্য সততা, নিষ্টার সাথে যাতে কর্তব্য পালন করতে পারেন সেজন্য সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন। এই পুরস্কার তাঁর আগামী দিনের অনুপ্রেরণা বলে মন্তব্য করেন তিনি।

একই সাথে তিনি কক্সবাজার জেলার সর্বস্তরের জনগণ, প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিক এবং তাঁর সহকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন পুলিশের এই কর্মকর্তা ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.