রোববার সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল

বিএনপির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে হরতালের ডাক দেওয়ার তথ্য জানানো হয়েছে।

এছাড়া বিএনপির যুগপৎ আন্দোলনের সঙ্গী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হকও হরতালের সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন।

তবে এ বিষয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় কোনো নেতার বক্তব্য এখনও পাওয়া যায়নি।

এর আগে দুপুরে বিএনপির সমাবেশ শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ পর ধাওয়া দেয় পুলিশ। বেশ কয়েকটি সাউন্ড গ্রেনেড ও টিয়ারশেল ছোড়ে পুলিশ। এর ফলে স্টেজ থেকে বিএনপির নেতাকর্মীরা নেমে যান।

জামায়াত নির্বাচনে যাবে, তবে দলীয় সরকারের অধীনে নয়
আওয়ামী লীগ-বিএনপির সমাবেশ : বিভিন্ন জায়গায় সংঘর্ষ, উত্তপ্ত রাজপথ
সমাবেশ পণ্ড হওয়ার পর দলীয় কার্যালয়ের নিচে হ্যান্ড মাইকে হরতালের ঘোষণা দেন মির্জা ফখরুল।

তিনি বলেন, বিএনপির শান্তিপূর্ণ সমাবেশে পুলিশ লাঠিচার্জ, সাউন্ড গ্রেনেড এবং টিয়ার শেল ছুড়ে পণ্ড করে দিয়েছে। এর প্রতিবাদে রোববার সারাদেশে সকাল সন্ধ্যা হরতাল পালন করবে বিএনপি।

বিএনপির পাশাপাশি ১২ দলীয় জোট এই হরতাল পালন করবে। ১২ দলের সমন্বয়ক সৈয়দ এহসানুল হুদা ঢাকা পোস্টকে জানান, আমরাও আগামীকাল সারা দেশে হরতাল পালন করব।

কয়েক সপ্তাহ আগে আজ ঢাকায় মহাসমাবেশ কর্মসূচির ডাক দিয়েছিল বিএনপি। এ নিয়ে গত এক সপ্তাহ ধরে রাজনৈতিক অঙ্গন বেশ উত্তপ্ত ছিল। বিএনপির মহাসমাবেশের পাল্টা হিসেবে রাজধানীতে শান্তি সমাবেশের ডাক দিয়েছে আওয়ামী লীগ। বায়তুল মোকাররম দক্ষিণ গেটে সেই সমাবেশ চলছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.