ইঞ্জিন বিকল, ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে উদ্ধার ১৫ জেলে

মিয়ানমার জলসীমায় ইঞ্জিন বিকল হয়ে আটকেপড়া ফিশিং ট্রলারের ১৫ জন জেলেকে মিয়ানমার নৌবাহিনীর হেফাজত থেকে উদ্ধার করেছে সেন্ট মার্টিন কোস্ট গার্ডের উদ্ধারকারী দল।

মিয়ানমার-বাংলাদেশ জলসীমায় গিয়ে মিয়ানমার নৌবাহিনীর হেফাজত থেকে ১৫ জন জেলেসহ বিকল বোটটিকে উদ্ধার করে সেন্ট মার্টিন নিয়ে আসে তারা।

সোমবার (১৫ জানুয়ারি) জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ পুলিশ পরিদর্শক (গণমাধ্যম ও জনসংযোগ কর্মকর্তা) আনোয়ার সাত্তার এ তথ্য জানান।
তিনি জানান, গত ৩ জানুয়ারি চট্টগ্রামের আনোয়ারার গহিরা উপকূল থেকে মা-মণি নামে একটি ফিশিং ট্রলার সাগরে মাছ ধরতে যায়। বোটটিতে ১৫ জন জেলে ছিলেন। ৪ জানুয়ারি ইঞ্জিন শ্যাফট ভেঙে বোটটি বিকল হয়ে সাগরে ভাসতে থাকে। এরপর দশদিন ধরে বোটটির কোনো খবর পাওয়া যায়নি। ১৪ জানুয়ারি মিয়ানমারের একটি ফিশিং ট্রলার সাগরে ভাসমান বিকল বোটটিকে দেখতে পায় এবং বোটটিকে টেনে মিয়ানমার-বাংলাদেশ জলসীমায় নিয়ে যায়।
এরপর বোটের একজন কালু মাঝি বোটের মালিককে ফোনে জানায় তারা মিয়ানমার নৌবাহিনীর হেফাজতে আছেন। এমন তথ্য জানিয়ে চট্টগ্রামের আনোয়ারা থেকে বোটের মালিক ওবায়দুল হক ‘জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯’ নম্বরে জরুরি উদ্ধার সহায়তার অনুরোধ জানিয়ে ফোন করেন রোববার (১৪ জানুয়ারি) রাত আটটায়।
এমন তথ্যের ভিত্তিতে ৯৯৯ কলটেকার কনস্টেবল নোবেল দাস কোস্ট গার্ড নিয়ন্ত্রণ কক্ষ ও সেন্ট মার্টিন কোস্ট গার্ডকে বিষয়টি দ্রুত উদ্ধারের ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জানায়। পরে ৯৯৯ ডেসপাচার এসআই জয়ন্ত চৌধুরী কলার এবং উদ্ধার সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে যোগাযোগ করে উদ্ধার তৎপরতার আপডেট নিতে থাকেন।
কলার ওবায়দুল হক সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে ৯৯৯ এ কল করে জানাই একটি মাছ ধরার ট্রলার ১২ দিন আগে ১৫ জন জেলেসহ নিখোঁজ হয়েছে, আজকে খবর পেয়েছেন তারা বার্মা নেভী কোস্ট গার্ডের কাছে আছে। পরে ৯৯৯ এর মাধ্যমে সেন্ট মার্টিন কোস্ট গার্ড জানতে পারে এবং তাদের মিয়ানমার বর্ডারে গিয়ে উদ্ধার করে সেন্টমার্টিন নিয়ে আসে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.